সর্দির ঔষধ একই সাথে বিজ্ঞান আর ঘরোয় পদ্বতি-Ibneomarfood

medicine of cold fever

জ্বর হয়েছে সাথে সর্দি ? এখন ট্যাবলেট খাবেন না সিরাপ খাবেন নাকি ঘরোয়া পদ্বতি বেশী উপকারি হবে? কোনটি দ্রুত প্রতিক্রিয়া দেখাবে? আচ্ছা ঐষধ যুদি খাবেনই তবে কোন ফার্মাসিটিকাল কম্পানির খাবেন? আপনার এ সবগুলো প্রশ্নের জবাব পেতে সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ুন আশাকরি আপনি অনেকটাই উপকৃত হবেন।

Table of Contents

সর্দি সম্পর্কে কিছু কথা

সাধারণত সর্দি জ্বর আসলে একটি ভাইরাস ঘটিত রোগ। এটি এক শ্রেণীর ভাইরাসের আক্রমনে হয়ে থাকে। এ ভাইরাস তার সংক্রামন ঘটায় বেশীর ভাগ সমসয় মানবদেহের উধ্ধশ্বাস দ্বার অথ্যাৎ নাসা পথে। তবে এর আক্রমনের প্রভাব পরে থাকে গলবিল, স্বার যণ্ত্র এবং অস্থিগহব্বরেও।

সর্দি সুধুযে নাক দিয়ে পানি ঝরা বা মাথা ব্যাথার একটা পরিস্থিতি তা কিন্তু নয়। সর্দির ফলে আরও নানা প্রকার সমস্যার দেখা দেয়। আর এ সমস্যা গুলোর চিকিৎসাও ভিন্ন ভিন্ন পদ্বতির হয়ে থাকে।

আমরা এখানি সর্দির সাথে বয়ে আসা কতগুলো সমস্যার সমাধা হিসেবে যে ঔষধগুলো চিকিৎসকেরা প্রয়শই প্রেসক্রিপ করে থাকে সে ঔষধগুলো সম্পর্কে আপাদের সাথে একটি তালিকা প্রকাশ করলাম।

সর্দির ঔষধ এর সময় এবং পরিমান

সর্দির ঔষধ

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য

Desloratadine(Deslor)5mg
ট্যাবলেট দৈনিক ১ বার ৫ থেকে ৭ দিন সেব্য।

Desloratadine কাজ করে থাকে

এটি একটি এন্টিহিস্টামিন জাতিয় ঔষধ।

  • চখে পানি
  • নাকে পানি
  • চোখ লাল
  • কাশি হাচি
  • তালুতে চুলকানি

Desloratadine এর ব্যবহার স্মপর্কিত কথা

সর্দির ঔষধ

একটি করে ট্যাবলেট প্রতিদিন রাতে খাওয়ার পরে খেতে হবে।৪ টাকা মুল্যে যে কোনো ফার্মিসিতে কিনতে পেয়ে যাবেন।গর্ভবতিদের জন্য এটা ব্যাবহার এখনও প্রতিষ্ঠিত হয় নি। আর তাই এটি গর্ভবতিদের জন্য কখনই আমরা সাজেস্ট করি না। তবে Desloratadine সেবন করার পূর্বে অবশ্যই আপনার চিকিৎসেকের পরামর্শ নিয়ে নিবেন।

হামদর্দ এর ঔষধ সমূহ এবং এর ডিবিশন সমূহ

Desloratadine ব্যাবহারে পাশ্বপ্রতিক্রিয়া

  • মাথা ব্যাথা
  • বমি বমি লাগা
  • মুখ শুকিয়ে যাওয়া
  • ঘুম ঘুম ভাব হওয়া

বিদ্র: এ সমস্যা গুলো দেখা দিলে অবশ্যই আপনার চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন।

যারা এট্যাবলেটটি ব্যাবহার করবেন না

  • গর্ভবতি মহিলারা
  • সদ্য মা হওয়া মহিলারা
  • যারা বৃক্কের রোগে আক্রান্ত
  • যাদের লিভারে সমস্যা আছে

কাশি ক্ষেত্রে ঔষধ

প্রাপ্তবয়স্করা

Bromhexine Hcl(Mucolyt)সিরাপ ২ চা চামচ দৈনিক ৩ বার ৫ থেকে ৭ দিন সেব্য।

শিশুরা যাদের বয়স ২ বছরের নিচে তাদের ১ চামচের ৪ ভাগের এক ভাগ সেবন করাবেন। এবং যে শিশুদের বয়স ২ থেকে ৫ এর মধ্যে তাদের হাফচা চামচ করে সেবন করাবেন। আর যে শিশুদের বয়স ৫ থেকে ১০ বছরের মধ্যে তাদের ক্ষেত্রে নিয়ম হলো ১ চা চামচ করে সেবন করানো।

এ ঔষধটি সেবনের সময় একটি বিষয় মনে রাখবেন কাশি দুই ধরণের হয়ে থাকে, একটি হলো শুষ্ক কাশি আরেকটি হলো কফযু্ক্ত কাশি। আর এ ঔষধটি আর এ ঐষধটি পেসক্রিপ করা হয় কফ যুক্ত কাশির জন্য। এটি আপনারা কথনই চিকিৎসকের অণুমতি ছারা শুষ্ক কামির জন্য সেবন করবেন না।

এ ঔষধটি গর্ভবতিদের জন্য নিরাপদ প্রমাণিত তবে সদ্য মা হওয়া বা শিশুকে বুকের দুধ পান করান এমন মায়েদের জন্য এটা সেবন করাটা ঠিক না। কারণ এটি দুধের মাধ্যমে শিশুর শরিরিও প্রবেশ করতে পারে।আর তাই এ ঔষধ এমন মায়েদের জন্য পেসক্রিপ করা হয় না। তবে এক্ষেত্রে কোনো রেজিস্টার্ট চিকিৎসকের মতামত নিয়ে সেবন করাটা ভালো হয়।

বিদ্র: হাপানি রোগিদের ক্ষেত্রে এর ব্যবহার ভয়ানক দেখা দিতে পারে। আর তাই যাদের হাপানির সমস্যা আছে তাদের এটি থেকে দূরে থাকার উপদেশ রইল।

এর কিছু পাশ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে আর সেগুলো হলো:

  • বমি হওয়া
  • ডায়ারিয়া
  • রেশ
  • বা এলার্জির প্রকোপ দেখা দিতে পারে
  • ঘুম ঘুম ভাব হওয়া

নাক বন্ধ হওয়া ক্ষেত্রে ঔষধ

প্রাপ্ত বয়স্করা

  • Xylometaxoline(Rhinozol) – নাকে ১ ড্রপ করে দৈনিক ৩ থেকে ৪ বার ৫ থেকে ৭ দিন সেব্য।

এ ড্রপটির কম্পানি ভেদে বাজার মূল্য কম বেশী হয়ে থাকে। তবে এর মূল্য সচরাচর ৪০ থেকে ৫০ টাকা হয়ে থাকে।

ড্রপটি ব্যবহারে ক্ষেত্রে শিশুরা

২ থেকে ৭ বছরের শিশুরা ২ থেকে ৩ ফোটা করে দিনে ২ বার ব্যবহার করবে। ৮ বছরের বেশী ২ থেকে ৫ ফোটা করে দিনে ২ বার করে ব্যবহার করবে।

এটি ড্রপ আকাদের এবং স্প্রে আকারে বাজারে দেখতে পাওয়া যায়। তবে ড্রপ ব্যাবাহার করাটাই ভালো। কারণ স্প্রে ৮ বছরের নিচে শিশুরা ব্যাবহার করতে পারে না।

এটি আপনারা বাজারে ২ টি ভেরিয়েন্টে দেখতে পেয়ে যাবেন। যার মধ্যে একটি হলো ০.২৫% এবং আপরটি হলো ০.৫% । এখানে ০.২৫% হলো শিশুদের জন্য যাদের বয়স ২ থেকে ৮ বছার এবং ০.৫% হলো বড়দের জন্য যাদের বয়স ৮ বছর এর উপরে।

Xylometaxoline(Rhinozol) ব্যাবহার করা যাবে

  • নাক জ্বালাপোড়া করা
  • নাক দিয়ে রক্ত পড়া
  • নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া
  • কানের পর্দা ব্যাথা করা
  • প্রদাহ
  • সাইনাস
  • ফুসফুসের উপরিভাগে এলার্জি

ড্রপটি অতিরিক্ত ব্যবহার করা যাবে না কারণ এটির অতিরিক্ত ব্যাবহারে হিতে বিপরিত হতে পারে। বিশেষ করে নাক জ্বালাপোড়া এবং মুখ ও গলার শুশ্কতা।

গর্ভবস্থায় বা সদ্য মা হওয়া মায়েদের জন্য এর ব্যবহার এখনও প্রতিষ্ঠিত হয় নি। আর তািই এর ব্যবহার করার ক্ষেতে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নিবেন।

ড্রপটি ব্যবহারে সতর্কতা:

এটি যাতে কোনো ভাবেই চখেল স্পর্শে না আসে।

এটি ৭দিনে অধিন সময় ধরে ব্যবহার করতে থাকা যাবে না। যুদি ব্যবহার করাটা প্রয়োজনিয় হয় তবে কোনো রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ব্যবাহর করবেন। নয়ত ‍পরিণতি ভয়ানক হতে পারে।

গলা ব্যাথা ক্ষেত্রে ঔষধ

সেবন করুন

  • Paracetamol(Renova)500mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ৮ ঘন্টা পর পর ৭ দিন সেব্য।
  • Doxycycline(Doxicap)100mg -১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ১২ ঘন্টা পর পর ৭ দিন সেব্য।

Paracetamol(Renova)500mg সম্পর্কে আপনাদের সাথে আগেও কথা বলেছি তাই এখানে আবার বললাম না।

Doxycycline(Doxicap)100mg এর ক্ষেত্রে তেমন কথা বলব না। তবে এটি ব্যবহার করবেন প্রাপ্তবয়স্করা। শিশূরা এটি ব্যবহার করবে না। তবে যুদি প্রয়োজন পরে তবে কোনো রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়েই ব্যবহার করবেন।

শ্বাসকষ্ট ক্ষেত্রে ঔষধ

প্রাপ্তবয়স্ক

  • Montelukast(Monas)10mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ১ বার ৭ থেকে ১৪ দিন সেব্য।

Montelukast(Monas)10mg এজমা প্রতিরোধ করে এবং বিভিন্ন এলার্জিক সমস্যার সমাধান দিয়ে থাকে। Montelukast(Monas)10mg যে বিষয় গুলোর উপর কাজ করে থাকে:

  • হাপানি অথ্যাৎ শ্বাসকস্ত নিস্বাস নিতে সমস্যা হওয়া নিস্বাসে দুর্বলতা
  • রাতে ব্যায়াম করার সমসয় কথা বলার সময় কাশি
  • বুকে টান টান ভাব হলে
  • শ্বাস নেওয়ার সময় বা হাসার সময় শো শো আওয়াজ হলে বা বুকে বিকট আওয়াজ হলে
  • এছারা বিভিন্ন এলার্জিক সমস্যা যেমন ত্বক ফুলে যাওয়া বা ত্বক লাল হয়ে যাওয়া বা নাকে পানি জমা চোখ দিয়ে পানি ঝরা

Montelukast সেবনের নিয়ম

৬ মাস থেকে ৫ বছর বয়সীদের জন্য ৪ mg প্রতি সন্ধায়
বিদ্র: তবে অধিন সংখ্যক পরামর্শক বা চিকিৎসকেদের মতে এ ঔষধটি ২ বছরের নিচে বাচ্চাদের সেবন না করাটাই ভাল।

যে বাচ্চাদের বয়স ৬ থেকে ১৪ বছার তাদের ক্ষেত্রে ৫ mg করে নিয়মিন প্রতি সন্ধায়

যাদের বয়স ১৫ বছরের বেশী তাদের ক্ষেত্রে ঔষধটি ১০ mg করে নিয়মিত সন্ধায় সেবন করতে হবে।

যারা এ ঔষধটি সেবন করবে না

  • ত্রীব্র অ্যাজমা আছে
  • গর্ভবতি
  • সদ্য মা হওয়া নারিরা বা যে সন্তাদের স্তন দানরত অবস্থায় আছে তারা

গর্ভবতি মায়েদের এবং সন্ত দানকারি নারিদের ক্ষেত্রে এখনও Montelukast(Monas)10mg পরিক্ষিত অবস্থায় প্রমাণিত হয় নাই। আর তাই এটা সেবন না করাটাই অনেকটাই নিষিদ্ব বলা চলে। যুদি খুব প্রয়োজন পরে তবে কোনো রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ব্যাবাহর করাটাই শ্রেয়।

গলাচুলকানি ক্ষেত্রে ঔষধ

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য

  • Desloratadine(Deslor)5mg – ট্যাবলেট দৈনিক ১ বার ৫ থেকে ৭ দিন সেব্য।

Desloratadine(Deslor)5mg সম্পর্কে আমি আমার পূর্ববর্তি লেখাতে বলেছি তাই আর নতুন করে লেখলাম না।

ডায়ারিয়ার ক্ষেত্রে ঔষধ

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য

  • Metronixazole(Metryl)400mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ৩ বার ৭ দিন সেব্য।
  • Ciprofloxacin(Neofloxin)500mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ২ বার ৭ দিন সেব্য।
  • Esomeprazole(Esonix)20mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ২ বার ৭ দিন সেব্য।

ডায়ারিয়ায় আক্রান্ত ব্যাক্তিদের জন্য এ ঔষধ গুলো চিকিৎসকেরা পেসক্রিপ করে থাকে। তবে সকল ঔষধ ব্যবহারেই কিছু পাশ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় আর ঔষধ ব্যবাহারের ক্ষেত্রেও তাই।

ব্যাবহার করার পূর্বে কোনো রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নিবেন।

বমি হওয়া ক্ষেত্রে ঔষধ

Emistat Syrup কাজ করে থাকে

এটি খাওয়ানোর পর খুব দ্রুতই অন্ত্র দ্বারা শোষিত হয়। এবং মটাবলিজম দ্বার বিপাক হয়। Emistat Syrup আসলে বাচ্চাদের যে কোনো কারণে হওয়া বমি ঠেকাতে খুবি কার্যকরি।
এবং এটি বিশেষ করে অপারেশন এর পর বমি হওয়ার উপক্রম হলে বা যে কোনো উপসর্গের কারণে হওয়া বমি ঠেকাতে খুবি কার্যকরি। যেমন ক্রম থেরাপি বা রেডিও থেরাপির কারণে হওয়া বমির বিরুদ্বে এটি সন্টুস জনক ফল দেখায়।

Emistat Syrup সেবনের নিয়ম কানুন

যে শিশুর বয়ষ ৪ থেকে ১১ বছর হয়েচে তাদের ক্ষেত্রে ১ চামচ করে দিনে ৩ বার খাবারের ৩০ মিনিট আগে।
বিদ্র: ৪ বছরের নিচে বাচ্চাদের এ সিরাপ খাওয়ানোর ক্ষেতে অবশ্যই চিকিৎকের পরামর্শ নিয়ে নিবেন। কারণ এ ক্ষেত্রে ৪ বছরের নিচে বাচ্চাদের এ সিরাপ খাওয়ানো ক্ষেত্রে কোনো পাশ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা না গেলেও হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর তাই চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে আপনার ৪ বছরের কম বয়সি বাচ্চাকে এ সিরাপটি কোনো মতেই খাওয়াবেন না।

সিরাপটির বিরুপ প্রতিক্রিয়া

  • মাথা ব্যাথা
  • এচকি
  • ডায়রিয়া
  • কোষ্ঠ কাঠিন্য
  • বুকে ব্যাথা
  • পেসার কমে যেতে পারে।

অন্য ঔষধ এর সাথে প্রতিক্রিয়া

এর এখন পযন্ত কোনো প্রকার প্রতিক্রিয়া অন্য ঔষধ এর সাথে দেখা যায় নি।

Emistat Syrup এর মূল্য এ পরিমাপ

এটি আপনি পেয়ে যাবেন মাত্র ৫০ টাকায় ৫০ মিলি এর একটি বোতলে।

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য Emistat ট্যাবলেট

  • Ondansetrom(Emistat)8mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ৩ বার ৫ থেকে ৭ দিন সেব্য।

সম্পূর্ন প্যকেটের মূল্য পরবে ৫০০ টাকা আর আর প্রতি একটি ট্যাবলেটের মূল্য পরবে ৮ টাকা করে। আর একটি প্যাকেটে ট্যাবলেট থাকে ৫০ টি।

জ্বরের ক্ষেত্রে ঔষধ

শিশুদের জন্য

শিশুদের জন্য এছে (Renova Syrup) সিরাপ রেনোবা। এর প্রধান উপাদান হলো Paracetamol. এটি আপনি যে কোনো ফার্মিসি স্টল থেকে ৬০ মিলি এর বোতলে পেয়ে যাবেন।

Renova Syrup কাজ করে থাকে

  • সাধারণ জ্বর
  • সর্দি জ্বর
  • শিশুদের ইনফ্লুয়েন্জা
  • শিশুদের মাথা ব্যাথা
  • শিশুদের টিকা দেওয়ার কারণে ব্যাথায় জ্বর
  • পড়েগিয়ে ব্যাথা পাওয়ার কারণে জ্বর

উল্লেখিত কারণ গুলোতে Renova Syrup খুবি আসাধরার কাজ করে থাকে।

Renova Syrup তৈরি ও সেবনের নিয়ম কানুন

আপনার শিশুর ‍জন্য সঠিক ভাবে সিরাপটি তৈরি করতে নিচের নিয়মটি অণুসরণ করুন।

যাদের বয়স ৩ মাসের কম তারদের জন্য রেনোবা সিরাপ ব্যবহার এর ক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে আপনার শিশুটির ওজন নিতে হবে। আপনার শিশুর প্রতি কেজি ওজনের জন্য ১০ মিলি করে খাওয়াতে হবে দিনে ৩ থেকে ৪ বার।
আর যেসব শিশুর বয়স ৩ মাসের উপরে এবং ১ বছারের নিচে আধাচা চামচ থেকে ১ চা চামচ দিনে ৩ থেকে চার বার খাওয়াতে হবে।
১ থেকে ৫ বছারের বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এক থেকে ১ থেকে ২ চা চামন করে দিনে ৩ থেকে ৪ বার খাওয়ানো যাবে।
যে শিশুদের বয়স ৬ থেকে ১২ বছর হয়ে গেচে তাদের ক্ষেত্রে ২ থেকে ৪ চা চামচ করে ৩ থেকে ৪ বার সেবন করতে পারবে অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে।

বিদ্র: প্রাপ্তবয়স্করাও খেতে পারবে সেক্ষেতে নির্দেশনা হচ্ছে ৪ থেকে ৮ চা চামচ করে দিনে ৩ থেকে ৪ বার সেবন করতে পারবে অথবা চিকিৎকের পরামর্শ নিয়ে খেতে পারবে।

এটি খাওয়ানোর আগে ভালো করে ঝাকিয়ে নিবেন। আর খাওয়ানো শেষ হয়ে গেলে ভালো করে বোতলের মুখ লাগিয়ে নিবেন।

Renova Syrup এর মূল্য

এ সিরাপটি আপনি ২০ থেকে ২১ টাকার মধ্যে যে কোনো ফার্সিসি স্টল থেকে কিনে নিতে পারবেন।

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য Renova ট্যাবলেট

  • Paracetamol(Renova)500mg – ১ টি ট্যাবলেট দৈনিক ৮ ঘন্টা পর পর ৭ দিন সেব্য

১টির বেশী খাওয়াটা ঠিক নয়। তবে যুদি অদিক জ্বর থাকে তবে আপনি প্রতি ৬ ঘন্টা পর পর একটি প্যারাসিটামন সেবন করতে পারবেন।

অত্যন্ত উপকারি একটি ঔষধ। জীবনে একবারও খায়ানি এমন ব্যাক্তি খূজে পাওয়াটা কঠিন হয়ে পরবে। কারণ জ্বর হলেই সব চিকিৎসার আগেই পেরাসিটামন বা নাপা খাওয়ানো হতো সেটা হোক প্রাপ্ত বয়স্ক বা অপ্রাপ্তবয়স্ক কোনো ব্যাক্তি।

যেকোনো ফার্মিসি স্টলে গিয়ে বললেই হবে প্যারাসিট্যামলের না। আপনাকে তারা আপনার কাক্ষিত ঔষধ বের করে দিবে। আর এতে তেমন কঠুর কোনো পাশ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। তবে প্রয়োজনের চেয়ে অধিক খেলে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ডায়াবেটিস এর সময় কী কী খাবেন আর কী খাবেন না জানতে পড়ুন

SQUARE এর সর্দির ঔষধ Fexo 120mg

বর্তমানে অনেকটাই জনপ্রিয়তার মধ্যে রয়েছে যে ফার্মাসিটিকাল কম্পানিটি সেটি হলো স্কয়ার। বলা হয় বায়লাদেশে সবচেয়ে বেশী বিক্রি হওয়া ঔষধ হলো স্কয়ারের ঘুমের ঔষধ।

যাই হোক তবে স্কয়ারের বাকি ঔষধ গুলোও ভালই বিক্রি হয়। তবে বর্তমানে কভিন ১৯ এর সময় স্কয়ারের যে ঔষধটি অধিন জনপ্রিয়তা পেয়ে ছে সেটি হলো Fexo। এর আরও অনেক ভেরিয়েন্ট আছে তবে স্বাভিক ব্যবহারের জন্য Fexo 120mg সাজেস্ট করে থাকে চিকিৎকেরা।
এটি একপ্রকার ট্যাবলেট আকারে পাওয়া যায়। এর প্রতি পিস ট্যাবলেট এর মূল্য ৮ টাকা আর এটির একটি পুরো প্যাকেট কিনতে খরচ হবে ৪০০ টাকার মতো।

এ সর্দির ঔষধটি যে বিষয় গুলোর উপর কাজ করে

এ নিচের সমস্যা গুলোর জন্য আপনি Fexo সেবন করতে পারবেন।

  • সর্দি
  • হাচি কাশি
  • শুষ্ক কাশি
  • কাশির কারণে গলা ব্যথা
  • এলার্জি জনিত সমস্যা
  • সিজনাল এলার্জি

অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য Fexo সর্দির ঔষধ

অপ্রাপ্ত বয়স বলতে যাদের বয়স ১২ বছরের নিচে তার Fexo এর ৬০ mg খাবেন আর দিনে একটি খাবেন। একদিনে একটি বেশী খাবেন না।

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য Fexo সর্দির ঔষধ

যাদের বয়স ১২ এর উপরে তাদের জন্য Fexo 200mg আর তারা এটি খাবেন দিনে একটি। একটির বেশী খাবে না নয়তো সমস্যা হতে পারে।

অধিক বয়স্ক লোকেদের জন্য Fexo সর্দির ঔষধ

অধিন বয়স্কদের জন্য রয়েছে Fexo ১৮০ mg. দিনে মাত্র একবার খাবেন।

সর্দির ঔষধ হিসেবে ঘড়োয়া পদ্বতি

সর্দির ঔষধ হিসেবে ঘড়োয়া পদ্বতি সম্পর্কে কম বেশী সকলেই জানেন। কারণ সর্দি লাগলেই বাসার বয়স্ক লোকেরা যেমন দাদি নানিরা বাড়ির ছোটদের সর্দির ঔষধ এ ঔষধ গুলো খায়িয়ে থাকেন। আবার অনেকে নাও জানতে পারেন। তবে যারা জানেন না তাদের জানানোর জন্য এবং যারা জানেন তাদের আবার মনে করিয়ে দেওয়ার স্বার্থে এখানে লেখা:

কোনো প্রকার সর্দির ঔষধ গ্রহণ করা ছারাও সর্দি ৭ দিন পরে আপনা আপনিই সেরে যায়া কিন্তু এ ৭ দিন সময়ের বিতরে অনবরত হাঁচি, গলা ব্যাথা নাক বন্ধ, মাথা ভার হয়ে থাকা, মাথা ঘোরা এবং কান বন্ধ থাকার মতো সমস্যাগুলো সৈয্য করে থাকাটা একটা অগ্নি পরিক্ষার মতো মনে হয়। তবে কিছু নিয়ম কানুন মেনে চললে এ সমস্যার সমাধা ৭ দিনের আগেই কোনো প্রকার ঔষধ গ্রহণ করার ছারা সমাধান করা যায়।

আদা চা এর উপকার

ঠান্ডা লাগলে সর্দির ঔষধ হিসেবে প্রয়শই মানুষ বিষেশ করে পুরুষরা আদা চা খেয়ে থাকে। আসলে এটি সর্দির সময় খুবি উপকারি প্রমাণিত হয়েছে। আদা চা বা মশলা চা বন্ধ হয়ে পড়া গলা খোলায়ার জন্য খুবি ভাল কাজ করে।

আদার অনেকগুলো বিশেষ গুণাগুণ আছে সেসব গুণাগুণ গুলোর মধ্যে একটি হলো আদা শ্লেষ্মা ঝিল্লির প্রদাহকে কমিয়ে আনে যা নাকের ভেতর এবং সাইনাসের গহব্বরকে সীমাবদ্ধ করে অথাৎ এটি শেষ্মা কাটাটে সহায়তা করে থাকে।

হালকা সর্দির জন্য সেরা ঘড়োয়া পদ্বতির সর্দির ঔষধ – ১

প্রয়োজনিয় উপকরণ:

  • তেজপাতা
  • দারুচিনি
  • এলাচ
  • লবঙ্গ
  • মধু

সর্দির ঔষধ ১ তৈরির পদ্বতি:

পরিমান মতো তেজপাতা, দরুচিনি, এলাচ, লবঙ্গ, মধু একটি নিয়ে ভারো করে ধুয়ে তার পর একটি পাত্রে এগুরোর সাথে পানি নিয়ে আগুণের আচে রাখুন।পানি অর্ধেক হয়ে গেলে পাত্রটি তুলে নিয়ে ছেকে নিন।

মসলা গুলো সরিয়ে নিন। এবার তৈরি পানির সাথে এক চামচ মধু মিশিয়ে কুসুম গরম থাকা অবস্থায় পান করে নিন।

সর্দির জন্য সেরা ঘড়োয়া পদ্বতির সর্দির ঔষধ – ২

প্রয়োজনিয় উপকরণ:

  • সামান্য পরিমন আদা
  • জিরা
  • তুলসি পাতা
  • লবঙ্গ

সর্দির ঔষধ ২ তৈরির পদ্বতি:

একটি পাত্রে কিছু পরিমান পানি নিয়ে নিন। এবার পানিতে সামান্য পরিমান আদা, কিছু পরিমান জিরা, তুলসি পাতা, এবং কিছু পরিমান লবঙ্গ নিয়ে নিন।

এবার পাত্রটিকে আগুন এর আচে রাখুন। পানি যখন অর্ধেক হয়ে যায় তখন পাত্রটি তুলে নিয়ে পানি ছেকে নিন।এবার একটি গ্লাসে করে পানিটি হালকা গরম থাকা অবস্থায় পান করে নিন। স্বাদ একটু ভালো নাও হতে পারে তবে এর জন্য আপনারা একটু মধু মিশিয়ে নিতে পারবেন। আর অবশ্যই মনে রাখবেন চিনি বা এমন কোনো উকারন যোগ করবেন না। এতে করে আপনার তৈরি ঔষধটির প্রভাব কমে যেতে পারে।

বিষেশ কথা কিছূ কথা সর্দির ঔষধ এর সম্পর্কে

এখানে দেওয়া সর্দির ঔষধ এর উপর তথ্য গুলো শুধু আপনাদের ধারণার জন্য তুলে ধরা হয়েছে। হতে পারে এখানো কোনো একটি পরামর্শ আপনার পরিস্থিতির সাথে নাও মিলতে পারে বা আমাদের মতামত অণুসারে কোনো ঔষধ সেবনে সে ঔষধঠিকমতো আপনার কাজে নাও আসতে পারে।

এজন্য আপনারা যে কোনো প্রকার ঔষধ গ্রহণ করার আগে অবশ্যই আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সেবন করবেন। কারণ সকলের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বা শারিরিক অবস্থা একরকম নাও হতে পারে। যার কারণে যে ঔষধের যে পরিমানটি একজনের ওপর কাজ করবে সেটি অন্য আরেকজনের উপর কাজ নাও করতে পারে।

কিন্তু আ্পনারা ঘড়োয়া পদ্বতিগুলো সর্দির ঔষধ নিসন্দেহে ব্যবহার করতে পারবেন কারণ এক্ষেত্রে এ ঐষধ গুলো আপনার কোনো ক্ষতি করবেন না।

google fit

No Comments

Leave a Reply

Categories

Featured