মেথি খাওয়ার নিয়ম আর সাথে জেনে নিন উপকার

rules for eating fenugreek

সারা রাত পানিতে মেথি ভিজিয়ে রেখে সকালে তার জল বা গরম পানি করে তাতে ১০ মিনিট ধরে মেথি ভিজিয়ে রেখে মধু, চিনি, লেবুর রস দিয়ে সরবত করে সকালে খালি পেটে খেতে পারবেন আর পাবেন আসাধারণ উপকার।

মেথি খাওয়ার উপকারে পেতে পারবেন মেথির শাক খেয়ে বা মেথির দানা পানিতে ভিজিয়ে রেখে খেয়ে। মেথি বিভিন্ন ভাবে খাওয়া যেতে পারে। তবে সবচেয়ে ভালো পদ্বতি হলো মেথি পানিতে ভিজিয়ে রেখে তার জল খাওয়া। স্বাধের জন্য চিনি বা মধু মিশিয়ে রাখতে পারবেন।

মেথি খাওয়ার নিয়ম সঠিক পদ্বতি

মেথি খাওয়ার ক্ষেত্রে আপনি চাইলে সরবত করে বা চা করে অথবা আপনি চাইলে তা গুড়ো করে খেয়ে নিতে পারবেন। আপনি চাইলে মেথির মসলা তরকারিতে বা আচারের স্বাদ বৃুদ্বি করার জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

যেমন আপনার তরকারির স্বাদ বাড়বে আপনার তকারির গ্রানও সুন্দর হবে। আর সাথে সাথে যেমন মিলবে স্বাদ তেমন মিলবে উপকার।

আপনি চাইলে রুটি, পরোটা, দোসা, সালাদ, বা রান্নায় ঝোল বা ভাজাতেও মেথি ব্যবাহর করে নিতে পারবেন। মেথির পাতাও আপনাকে মেথির দানার সমপরিমান গুনাগুন দেবে।

মেথি খাওয়ার উপকারিতা

মেথি খাওয়ার নিয়ম

মেথি খাওয়ার উপকারিতা বলতে শুরু করলে বলে শেষ করা যাবে না। এর উপাকার গুলোর মধ্যে কিছু আমি এখানে লিখবো।

মেথি যেমন মসলা আকারে খাওয়া যায় ঠিক তেমনি চাইলে শাক আকারেও খাওয়া যায়। আবার মেথি সরবত করেও খাওয়া যায়। আবর মেথির সাপলিমেন্ট ক্যাপসুলও বাজারে কিনতে পাওয়া যায়।

তবে মেথির সাপলিমেন্ট ক্যাপসুল যখন তখন খেলেই হবে না অবশ্যই আপনাকে কোনো পেশাদার চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়েই ব্যবহার করতে হবে।

কোলেস্টরলের মাত্রা ঠিক রাখায়

মেথিতে থাকে দ্রবনিয় ফাইবার। যা মানবদেহে খারারপ কলেস্টরল কে কমায়। আর নিয়ম মেনে খেলে মেথি মানব দেহের কলেস্টরলের উপর নিয়ন্ত্রণ আনে। এতে করে কলেস্টরলের মাত্রা রক্তে নিয়ন্ত্রিত থাকে।

জেনে নিন ভিটামিন ই এবং এর সাপ্লিমেন্ট ক্যাপসুল গুলোর সম্পর্কে

রক্তে চিনির মাত্রা বৃদ্বি পেলে তা নিয়ন্ত্রনে আনকে মেথি খান। এমন অবস্থায় মেথি খাওয়ার প্রয়োজন পরে ২.৫ থেকে ১৫ গ্রাম। তবে আপনি যুদি মেথির স্বাদ পছন্দ না করেন তবে আপনি মেথির ক্যাপসুল খেতে পারবেন।

অবশ্যই ক্যাপসুল খাওয়ার সিদ্বান্ত নেওয়ার আগে ডাক্তারে পরামর্শ নিয়ে নিন। আর চাইলে খেয়ে নিতে পারবেন মেথির চা। কুসুম গরম পানিতে মেথি ভিজিয়ে তৈরি করে নিতে পারবেন মেথির চা।

পেটের সমস্যা দুরি করণে

বিভিন্ন রকমের পেটের সমস্যা দুর করাতে এর কথা সবার আগে বলতে হয়। নিয়মিন মেথি খেলে গ্যাস্টিক, কোষ্ঠ কাঠিন্য জনিত সমস্যর হাল হয়।

মেথি সমস্যা গুলো দুর করে থাকে। মেথিতে থাকে ফাইবার যার কারনে মানব শরিরের পাচন প্রক্রিয়া ধিরে ধিরে হয় আর ইমিউন সিস্টেম ঠিক রাখে।

হটাৎ কোনো প্রকার পেট ব্যথা সেটা হতে পারে যে কোনো কারণে মেথি তারও প্রতিকার। মেথি শাক খেলে ভালো ফল পাওয়া যায়। ঋতুস্রাব এর ব্যাথাতেও এটি কার্যকরি।

ডায়াবেটিস রোগ প্রতিকারে মেথি

ভারতের এক সমিক্ষায় দেখা গেছে যে ১০ গ্রাম মেথি গরম পানিতে ভিজিয়ে রেখে খেলে টাইপ-টু-ডায়াবেটিস রোগ দমন সম্ভব।

আগেই বলেছে মেথিতে থাকে ফাইবার। ফাইবার মানবদেহের ইমিউন সিস্টেম ঠিক রাখে আর পাচন প্রক্রিয়া সচল রেখে শরীরের শর্করা শোষণ এর পরিমান কমায় আর নিয়মই ইনসুলিন তৈরি করতে সহায়তা করে।

আর ইনসুলিন তৈরির কারণে ডায়াবেটিস এর রোগিরা অনেক আংশে সুস্থদের মতো জীবন কাটাতে পারে।

কৃমি প্রতিরোধে মেথি

মানব দেহে কৃমির প্রভাব সম্পর্কে কে না জানে। শুধু মানদেহেই না এ কৃমির প্রভাব অন্য সকল প্রাণির মধ্যেও দেখা যায়। আর এজন্যই শৈশব কাল থেকে আমাদের একটি নিদিষ্ট বয়সে কৃমির টেবলেট বা ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়।

কিন্তু জরমূল থেকে কৃমি দমন করা সম্ভব নায়। তবে এ কৃমিকে প্রতিরোধ করার ক্ষমতা আছে মেথিতে। মেথিতে এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান আছে যা মানবদেহের কৃমির প্রভাব কমিয়ে আনে। আর একটি সুস্থ জীবন উপহার দেয়।

ত্বকের লাবন্যময়তায় মেথির চিকিৎসা

ত্বকের যন্ত সুধুযে মেয়েরা করে তা কিন্তু নয়। পুরুষরাও আজকাল ত্বকের যত্নে বেশ মনোযোগ দেয়। এজন্য কোনো প্রকার দামি ক্রিম এর প্রয়ো জন নেই।

আপনার ত্বকের যেকোনো প্রকার কালো দাগ ছোপ দূর করতে আসাধারণ প্রভাব দেখাবে আর আপনাকে অবাক করে রেখে দিবে।

মেথিই আপনার জন্য সেরা বিউটি এক্সপার্ট হয়ে প্রমান দিবে। মেথিতে এক সাথে আনেক পুষ্টি উপাদান থাকে। এদের মধ্যেই একটি হলো ভিটামিন সি।

ভিটামিন সি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করে পড়া শুরু করুন।

আর ভিটামিন সি মানব ত্বকের জন্য কটতা কার্যকরি তা আর আলাদা করে বলতে হয় না। আর এছারাও মেথিতে রয়েছে অধিক পরিমানে প্রটিন, পটাসিয়াম, ফাইবার, আইরন, ভিটামিন সি ও নিয়াসিন। যা আপনার ত্বকলে লাবন্যময়ি করতে সাহায্য করে।

আর শুধু এতেই শেষ নেই আপনার চুলের জন্যও মেথি খুবি কার্যকরি। মেথি ঠিক একই পদ্বতিতে সারা রাত ভিজিয়ে রেখে সকালে তার জল আপনার চুলে বা আপনার ত্বকে প্রয়োগ করতে পারবেন।

হরমোনের পরিমান ঠিক রাখা

হররোনের ইরেগুলেশনের কারনে মানব দেহে নানা প্রকার সমস্যা দেখা যায়। শরীরে হরমোনের পরিমান বৃুদ্বি করতে মেথি খুবি কার্যকরি ভূমিকা রাখে।

মূলত মেথিতে থাকে সাপোনিস এবং ডায়োজেনিন নামক দুটি গুরুত্বপূর্ণ যৈগ। যা মানব শরীরে হরমোনের পরিমান বৃদ্বি করে।

ওজন কামাতে মেথির দানার ব্যবহার

ওজন কমাতে মেথি খুব ভালো কাজ করে। আপনি প্রতিদিন সকালে মেথির দানা খালিপেটে চিবিয়ে খেলে আপনার ওজনে আপনি অভূতপূর্ণ পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

মনে রাখবেন সুধু মেথির দানা চিবিয়ে খেলেই হবে না। অবশ্যই আপনাকে নিয়েমিত ব্যয়ামও করতে হবে।

মেথির গুড়োর ব্যবহার

মেথি গুড়ো করে তা কোনো ভেজা কাপরে মুড়ে ফাঁপা, পোড়া বা জলে যাওয়া বা চর্মরোগের ক্ষেত্রে খুব ভালো কাজ দেয়। তবে একটা কথা খেয়ার রাখবেন আর সেটা হলো মেথি অবশ্যই শুকনো অবস্থায় গুড়ো করবেন।

মেথির সঠিক ব্যবহার ভুলে গুনাগুন নষ্ট

মেথির সঠিক ব্যবহার হলো এটি হয় আগে গুড়ো করে নিন নয় দানা বা শাক খান। কারণ মেথির দানা পানিতে ভেজানোর গুনাগুন নষ্ট না হলেও পানিতে ভিজিয়ে পিষলে এর গুণাগুন নষ্ট হয়ে যায়।

আর তাই মেথির গুনাগুন অক্ষুন্ন রাখতে অবশ্যই হয় এটা রোদে শুকিয়ে তারপর গুড়ো করুন অথবা দানা আকারে পানিতে ভিজিয়ে রেখে বা চা করে গ্রহণ করুন।

মেথির বিভিন্ন প্রকার জটিল রোগ প্রতিরোধ

মেথির নিয়মিত ব্যবহার আপনার অজান্তে আপনার অনেক রোগের প্রতিকার করে দেয়। বলা হয় মেথি ক্যান্সারের মতো রুগের বিরুদ্বেও ভালো প্রতিরোধ গরে তুলে।

মেথির ব্যবহারে নিষেধ যাদের জন্য জেনে নিন

মেথি ব্যবহার অপাত দূষ্টিতে ভালো আর ভীষণ উপকারি হলেও গর্ভবতি মা এবং শিশুদের ব্যবাহারে বিষেশ নিষেদ দেয়া হয়। আর এক কথায় মেথির ব্যবহার তাদের জন্য নিষেধ।

মেথির ব্যবহার অতি ঘন করাটা ঠিক না। ৬ মাসের বেশী সময় ধরে মেথি ব্যবহার করলে আপনাকে পড়তে হতে পারে নানা প্রকার সমস্যায়।

No Comments

Leave a Reply

Categories

Featured