খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বই pdf ডাউনলোড

food and nutrition

খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বই pdf, ২০+ অসাধারণ বই শেয়ার করব এ পোস্টটির মাধ্যমে আপনাদের সাথে আজ। বইগুলো বাংলা এবং ইংরেজি ভার্সনের হবে। ইংরেজি বইগুলো বাংলা করে পড়ার টুলও আপনাদের সাথে শেয়ার করবো।

বই গুলো শেয়ার করার আগে আপনাদের করা কিছু প্রশ্ন আপনারা যে গুলো প্রায়শই করে থাকেন খাদ্য ও পুষ্টি নিয়ে সে প্রশ্নগুলোরও উত্তর এখানে সম্পূর্ণ ভাবে দেওয়ার চেষ্টা করব।

খাদ্য ও পুষ্টি বিদ্যালয় জীবনে ক্লাস ওয়ান থেকে ক্লাস ফাইব পযন্ত বিজ্ঞন বই এর যা পড়ানো হয় তার সবটাই মূলত এ খাদ্য ও পুষ্টি নিয়েই। আংশিক ভাবে হলেও বিজ্ঞান বলতে আমরা তখন এসবই বুঝতাম।

আজকের এ লেখা গুলো পড়ার পর আপনার জানার পরিমানের সাথে কিছু হলেও নতুন করে যুক্তহবে বলে আমি মনে করি। আর আপনি যুদি একজন ছাত্র বা ছাত্রি হোন তবে এ লেখাটি আপনার অনেক কাজে আসবে।

কারণ একজন ছাত্র কখনই এতগুলো বই আগে থেকেই থাকতে আরও দুইটি বই কিনে নিজের বোঝা বাড়াতে চাইবে না।

আর যুদি আপনি একজন ইউনিভারসিটি ছাত্র হয়ে থাকেন তবেও লেখাটি আপনার অনেক কাজে আসবে। কারণ এ গুলো আপনার দৈনন্দিন জীবনের বাহিরে নয়।

খাদ্য কী?

সে সব যা খাওয়া যায় যার মধ্যে শক্তি বিদ্যমান এবং ৬ টি পুষ্টি উপাদান বিদ্যমান তাই খাদ্য।

খাবারে বিদ্যমান ছয়টি খাদ্য উপাদান হলো— ১. কার্বোহাইড্রেট , ২. প্রোটিন , ৩. ফ্যাট , ৪. ভিটামিন , ৫. জল , ৬. খনিজ পদার্থ ।

১. কার্বোহাইড্রেট

কার্বহাইড্রেট যাকে শর্করাও বলা হয় এটা আমাদের দেহে শক্তির যোগান দেয়। তবে এখানে আরেকটি কথা হচ্ছে কার্বহাইড্রেট আবার তিন প্রকার হতে পারে:

  • সুগার: যেটি খুব দ্রুত হজম হয়ে শক্তি তৈরি করে। এদের সিম্পল কার্বহাইড্রেও বলা হয়।
  • স্টার্চ: এগুলো হজম গতি প্রক্রিয়া খুবি ধির গতিতে হয়ে থাকে আর তাই এগুলো জটিল বা কম্পেক্ল কার্বহাইড্রেট নামেও পরিচিত।
  • ফাইবার: এরা সাধারণত হজাম হয় না এবং কোনো প্রকার শক্তি উৎপাদন করার কাজ করে না। এরা সুধু শরিরিক কার্য সম্পাদনে কাজে আসে।

২. প্রোটিন

প্রোটিন: যার অপর নাম আমিষ। আমিষ যার মূল ভিত্তিই হলো অ্যামাইনো এসিড। আর দেখাগেছে প্রোটিনে মোট ৯টি কার্যকরি আর ১১টি অকার্যকরি সব মিলিয়ে মোট ২০টি অ্যামাইনো এসিড থাকে। প্রটিন আমাদের দেহে যে কাজ গুলো করে থাকে সেগুলো হলো:

  • শরীরে শক্তির যোগান দেয়,
  • পেশী ও কোষ গঠনের কাজ করে
  • হরমোনের কাজে সহায়তা করে
  • মোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়
  • খাদ্য হজম করার জন্য যে এমজাইম গুলো প্রয়োজন তা যোগান দেয়

৩. ফ্যাট

শরীরে শক্তি যেগানের দ্বিতীয়তম প্রধান উৎস হিসেবে কাজ করে। এরা শরীরে ভিটামিন শোষণে সহায়তা করে এবং দেহের আভ্যন্তরিন অঙ্গ-প্রতঙ্গের সুরক্ষায় ভূমিকা রাখে।

  • আর এদের কোজের ভালো ও মন্দের দিক বিবেচনায় এদের ৩ ভাগে ভাগ করা হয়:
  • অসম্পূক্ত বা আনস্যাচুরেটেড ফ্যাট যা স্বাস্থের জন্য ভাল।
  • সম্পৃক্ত বা স্যাচুরেটেড ফ্যাট।
  • ট্র্যানস ফ্যাট যা ক্ষতিকর ফ্যাট হিসেবে বিবেচিত।

৪. ভিটামিন

ভিটামিন: একে খাদ্রের প্রাণও বলা চলে। এরা মোট ১৩টি। দ্রবনিয়তার দিক দিয়ে দেখলে এদের দুই ভাগে ভাগ করা হয়:

  • পানিতে দ্রবনিয় ভিটামিন
  • চর্বিতে দ্রবনিয় ভিটামিন

৫. জল

মিনারেলস বা খনিজ লবন: এদের সংখ্যা মোট ১৫টি। এরা দুই ধরণের-

  • Trace Minerals
  • Major minerals

৬. খনিজ পদার্থ

পানি: শরীরে পানির ভূমিকা-

  • দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রন করে
  • দেহের হারের জয়েন্টে লুব্রিকেন্ট এর মতো কাজে সাহায্য করে
  • শরীরের বজ্য অপসারেণের কাজ করে
  • খাদ্য হজম, শোষণ এবং পরিবহনে কাজ করে

পুষ্টি কী?

খাদ্যের মধ্যে বিদ্যমান উপাদান যা আমাদের শরিলে শক্তি যোগানোর কাজ করে না। বরং আমাদের শরিরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্বি, ক্ষয় পূরণ এবং সুস্বাস্থ রক্ষায় বিষেশ ভূমিকা পালন করে তাই পুষ্টি।

পুষ্টির পাঁচটি পর্যায় । যথা— ১. খাদ্যগ্রহণ , ২. পরিপাক , ৩. শোষণ , ৪. আত্তীকরণ ও ৫. বহিষ্করণ ।

পুষ্টি এবং খাদ্যের মধ্যে পার্থক্য

খাদ্য এবং পুষ্টির মধ্যে অনেক পার্থক্য বিদ্যমান। আমি তাদের মধ্যে কয়েকটি পার্থক্য আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম।

পুষ্টিখাদ্য
যে পদ্ধতিতে জীব খাদ্যবস্তু গ্রহণ , পরিপাক , শােষণ , আত্তীকরণ ও বহিষ্করণের মাধ্যমে দেহের বৃদ্ধি ঘটায় , ক্ষয়পূরণ করে এবং খাদ্যমধ্যস্থ স্থিতিশক্তিকে ব্যবহারযােগ্য শক্তিতে পরিণত করে জীবনের ধর্মগুলি পাlলন করে , তাকে পুষ্টি বা পরিপােষণ বলে ।যেসব আহার্য বস্তু পরিপাকের মাধ্যমে জীবদেহের পুষ্টি ও বৃদ্ধিসাধন , ক্ষয়পূরণ , তাপ উৎপাদন প্রভৃতি কার্য সম্পন্ন করে ও দেহের রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা গড়ে তােলে , তাদের খাদ্য বলে । যেমন — ভাত ,মাছ, মাংস,ডাল ইত্যাদি
পুষ্টি আমাদের শরিরের রেগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, ক্ষয় পূরণ, সুস্বাস্থ বজায় রাখার কাজ করে থাকে কিন্তু শক্তি যোগারে কাজ করে না। খাদ্য যেমন আমাদের পুষ্টির যোগানদেয় ঠিক তেমনি আমাদের শক্তিরও যোগান দেয়।
পুষ্টির পর্যায় ৫টি। খাদ্য গ্রহণ পুষ্টির ১ম পর্যায়ে অবস্থা করে আছে।
পুষ্টির অভাবে মানুষ নানা প্রকার রুগে আক্রান্ত হয় খাদ্যের অভাবে মানুষ দুর্বল হয়ে পড়ে
পুষ্টি খাদ্য ছারা হতে পারে নাখাদ্য পুষ্টিমান ছারাও হতে পারে

মুখ্য উনপুষ্টি কাকে বলে?

আহার্যে এক বা একাধিক উপাদানের অভাবের ফলে জীবদেহে যে অপুষ্টি দেখা দেয় , তাকে মুখ্য উনপুষ্টিবলে । 

পুষ্টির মান নির্ণয়ে সহায়ক কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পদ্বতি কী?

পুষ্টির মান নির্ণয়ে সহায়ক চারটি গুরুত্বপূর্ণ পদ্ধতি হল—

১. অ্যানথ্রোপােমেট্রিক পরিমাপ ,
২. জৈবরাসায়নিক মূল্যায়ন,  
৩. চিকিৎসাশাস্ত্রগত মূল্যায়ন এবং
৪. খাদ্যসমীক্ষা বা নিরীক্ষা পদ্ধতি ।

স্বাস্থ কাকে বলে?

স্বাস্থ্য হল দেহের ও মনের সুখানুভূতি । এটি কেবল রােগের অনুপস্থিতি কিংবা দুর্বলতার অভাব নয় । এটি হল সম্পূর্ণ শারীরিক , মানসিক এবং সামাজিক উন্নতিমূলক অবস্থা ।

খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বই pdf ডাউনলোড করুন

নিজেকে সুস্থ রাখার জন্য আপনার জানা দরকার যে আসলে কোন খাদ্য বা কোন খাদ্যভাস আপনার জন্য ক্ষতিকর। আর এ বিষয়গুলো সম্পর্কে জানার জন্য আপনার একটি সোর্স প্রয়োজন। আসলে বর্তমানে আনেক খাদ্য ধারনর সূষ্টি হয়েছে তবে এ সবগুলো ধরণা মধ্যে অনেক ধারণা সঠিক নয়।

আর এ বিষয়গুলো সুস্পষ্ট ভাবে জানার জন্য আপনার প্রয়োজন বিজ্ঞান সম্মত জ্ঞানের। আর এটা সম্ভব একমাত্র বই দ্বারা। আর এখানে আমি যে বইগুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করবো সে বইগুলো সব সকল ফুড এন্ড নিউট্রিশন স্পেশালিস্টদের দ্বারা লেখা আর বইগলো নিচের লিংক থেকে একদম ফ্রিতে আপনারা ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বই pdf ডাউনলোড করুন

স্বাস্থ ও পুষ্টি বিষয়ক বই এই লিংকটি থেকে ডাউনলোড করুন।

গাছান্তক ঐষধ বিষয়ে জানার জন্য এ বইটি ডাউনলোড করুন।

Book 1

Book 2

Book 3

Book 4

Book 5

Book 6

Book 7

Book 9

Book 10

Book 11

Book 12

Book 13

Book 14

Book 15

Book 16

Book 17

Book 18

Book 19

Book 20

Categories

Featured